আপনারা মামলা করেন, মাসুদা ভাট্টিকে ‘কটূক্তি’ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২২ অক্টোবর ২০১৮, ২০:৪৪ | আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ০১:৩৭ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি : ফোকাস বাংলা

সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে নিয়ে টকশোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের অশালিন মন্তব্য প্রসঙ্গে নারী সাংবাদিকদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আপনারা মামলা করেন, আমরা যা করার করব।’

আজ সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। সম্প্রতি সৌদি আরবে প্রধানমন্ত্রীর চার দিনের সফরের অভিজ্ঞতা জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা বাংলা চ্যানেলের (ডিবিসি) সাংবাদিক তাহসিনা জেসি প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘সম্প্রতি ঐক্যজোটের একজন নেতা প্রকাশ্যে আমাদের এক নারী সাংবাদিককে যে অকথ্য ভাষায় কটূক্তি করেছেন। আমরা দেখেছি যে বিষয়টি নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এরপরও সকাল বেলা ওয়ারেন্ট জারি হয়েছে এবং বিকোলের মধ্যে তিনি আগাম জামিন নিয়ে রেব হয়ে গেছেন। মাঝখানের সময়টাতে আমরা দেখেছি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নীরব ছিল। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি আসলে বিষয়টিকে কীভাবে দেখছেন?’

উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেখুন যখন একটা মামলা হয় তখন ওয়ারেন্ট ইস্যু হওয়ার সাথে সাথেই কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর ছিল। কিন্তু ওই ভদ্রলোক (মইনুল হোসেন) সকাল বেলা, সময়ের আগেই উচ্চ আদালতে যেয়ে আশ্রয় নিয়ে বসে থাকেন, তো স্বাভাবিকভাবেই যেখানে বিচার বিভাগ সেখানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী হামলা করতে পারে না বা তাকে গ্রেপ্তার করে আনতে পারে না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সেখানে আগাম জামিন চেয়েছেন এবং কোর্ট তাকে জামিন দিয়ে দিয়েছে। তাও কী পাঁচ মাসের। বরং আপনারা সেখানে গিয়ে জিজ্ঞাসা করেন, যিনি এ রকম একটা জঘন্ন কথা বললেন একজন নারী সাংবাদিকককে এবং প্রকাশ্যে সারা বাংলাদেশ কেন, বিশ্ব দেখেছে যে কীভাবে তিনি এই নারী সাংবাদিকের বিরুদ্ধে কথা বললেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ঠিক আছে, এটা কোর্টের ইচ্ছা, যদি জামিন দেন আমাদের কিছু করার নাই। সেক্ষেত্রে আমি বলব যে আমাদের যে নারী সাংবাদিকরা, আপনারাই বা কী করছেন? একজনের বিরুদ্ধে বলেছে, একটা মামলা না হয় হয়েছে, আরও তো মামলা হতে পারে। এর প্রতিবাদও আপনারা করতে পারেন। আপনারা প্রতিবাদ করেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যা করার করবে। আপনারা মামলা করেন, আমরা যা করার করব।’

ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন (বাঁয়ে) ও মাসুদা ভাট্টি। পুরোনো ছবি

এর আগে গত ১৬ অক্টোবর রাতে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল একাত্তর টিভির টকশোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি প্রশ্ন করেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আপনি যে হিসেবে উপস্থিত থাকেন, আপনি বলেছেন আপনি নাগরিক হিসেবে উপস্থিত থাকেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, আপনি জামায়াতের প্রতিনিধি হয়ে সেখানে উপস্থিত থাকেন।'

মাসুদা ভাট্টির এই আক্রমণাত্মক প্রশ্নে রেগে গিয়ে মঈনুল হোসেন বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। আপনি চরিত্রহীন বলে আমি মনে করতে চাই। আমার সঙ্গে জামায়াতের কানেকশনের কোনো প্রশ্নই নেই। আপনি যে প্রশ্ন করেছেন তা আমার জন্য অত্যন্ত বিব্রতকর।’ পরে ‘শিক্ষিত ভদ্রমহিলা হিসেবে’ অন্য প্রশ্ন করার আহ্বান জানান ব্যারিস্টার মইনুল।

এ সময় মাসুদা ভাট্টি বলেন, ‘আপনি শিবিরের একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে বক্তব্য দিয়েছিলেন এবং আপনি সেই অনুষ্ঠানে বলেছেন যে আপনার সঙ্গে শিবিরের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ আছে। সেই বক্তব্য এখন সব জায়গায় দেখানো হচ্ছে।  এ কারণে মানুষ এই প্রশ্ন করছে যে আপনি জামায়াতের হয়ে এখানে উপস্থিত থাকছেন কি না।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে