শারীরিক ১০ সমস্যায় আক্রান্ত খালেদা জিয়া

বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসার পরামর্শ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৪৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসকদের নিয়ে গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতাজনিত ১০টি সমস্যা চিহ্নিত হয়েছে। এ অবস্থায় বিএনপি চেয়ারপারসনকে বিশেষায়িত হাসপাতালে পর্যবেক্ষণে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন মেডিক্যাল বোর্ড। তাদের পরামর্শ, বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা প্রদান ভালো পছন্দ হতে পারে।

গতকাল বুধবার বোর্ডসভার এ পরামর্শ ও মতামত গতকালই খালেদা জিয়াকে জানানো হয়েছে। তবে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার বিষয়ে অনড় থেকে আবার বিএসএমএমইউতে চিকিৎসা গ্রহণ নাকচ করে দিয়েছেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে গত ৯ সেপ্টেম্বর মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সঙ্গে দেখা করেন। এরপর ৭৩ বছর বয়সী খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসায় সরকারের পক্ষ থেকে পাঁচ সদস্যের একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়। বোর্ডের সদস্যরা রবিবার বিকালে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে যান। ওইদিন খালেদা জিয়ার ১৪ ধরনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়।

মেডিক্যাল বোর্ডের মতামতে বলা হয়েছে, বেগম খালেদা জিয়া বাঁ হাতের হাড়ের জোড়া ব্যথা, ঘাড়ে ব্যথা, কোমরের হাড়ে ব্যথা, বাঁ কাঁধে সমস্যা, পায়ের পাতা ও আঙুলে সমস্যা, বাঁ কোমরে গেঁটে বাত, মাংসপেশিতে কম্পন, হাড়ের ক্ষয়, চোখ শুকিয়ে যাওয়া এবং উভয় হাঁটুতে অ্যালার্জিতে ভুগছেন। তবে তিনি ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপমুক্ত। বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তির পাশাপাশি বেগম জিয়ার সুস্বাস্থ্যের জন্য তাকে ভিটামিন-ডি, ক্যালসিয়াম, ফলিক এসিড, ফিজিক্যাল থেরাপি, পায়ের মাংসপেশির ব্যায়াম, ডক্টরস সু, চোখের ড্রপসহ কয়েক ধরনের ওষুধ গ্রহণের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল জলিল চৌধুরী, কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মো. হারিসুল হক, অর্থোপেডিকস সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আবু জাফর চৌধুরী, অপালমোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. তারেক রেজা আলী এবং ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. বদরুন্নেসা আহমেদকে নিয়ে সরকারি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সংবাদ সম্মেলন করে বলেছেন, আওয়ামী লীগের প্রতি অনুগত চিকিৎসকগণের অন্তর্ভুক্তকৃত মেডিক্যাল বোর্ডের মাধ্যমে দেশনেত্রী চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার যথাযথ চিকিৎসা ও তার শারীরিক পর্যবেক্ষণ সঠিকভাবে প্রতিফলিত হবে না। তার ভাষ্য, বোর্ডের অন্যতম সদস্য ডা. আবু জাফর চৌধুরী নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) প্রার্থী, তিনি দলীয় প্রার্থী হিসেবে সংশ্লিষ্ট এলাকায় ব্যাপক নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন। অপর সদস্য ডা. হারিসুল হক আওয়ামী লীগের সমর্থিত চিকিৎসক সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের বিএসএমএমইউ’র ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক। অধ্যাপক তারেক রেজা আলী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যবিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য।

এদিকে কারাবন্দি খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে গতকাল বুধবার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত কারাগারে গেছেন তার দুই আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া ও অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার। বিকাল ৪টা ২০ মিনিটে তারা কারাগারের ভেতরে ঢোকেন। একই সঙ্গে মামলার হাজিরার বিষয়ে কথা বলেছেন।

অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া আমাদের সময়কে বলেন, চিকিৎসা না পাওয়ায় ম্যাডাম দিনদিন প্যারালাইজড হয়ে যাচ্ছেন। হাত-পায়ের আঙুলগুলো ঠিকমতো কাজ করছে না। তাকে দ্রুত চিকিৎসা দেওয়া জরুরি। তবে চিকিৎসা গ্রহণের ক্ষেত্রে ম্যাডাম এবং দলের পক্ষ থেকে আমরা বরাবরই ইউনাইটেড হাসপাতালের কথা বলে আসছি।

আদালতে হাজিরা প্রসঙ্গে বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে কারাগার থেকে বেরিয়ে এসে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ম্যাডাম আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তিনি সুস্থ থাকাসাপেক্ষে আদালতে আসবেন। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা খারাপ। তার চিকিৎসার প্রয়োজন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে